ঢাকা    সোমবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০

coronavirus
আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বিশ্বব্যাপী ৩১২৫৯৭৮০ ২২৮৪৩৬১৮ ৯৬৫৩২৮
বাংলাদেশ ৩৫০৭২১ ২৫৮৭১৭ ৪৯৭৯

আগে বিগ প্রজেক্টে ডাক পেতাম না: তাসনুভা তিশা

বিনোদন প্রতিবেদক

প্রকাশিত: ০০:২৫, ২ জুলাই ২০২০  

ছবিঃ সংগৃহীত

ছবিঃ সংগৃহীত

ওয়েব সিরিজ 'আগস্ট ১৪’তে নিজেকে চিনিয়েছেন এই অভিনেত্রী। একদিকে হয়েছেন প্রশংসিত, অন্যদিকে সমালোচিত।

৬ বছরের ক্যারিয়ার। সেভাবে কখনোই জ্বলে উঠতে পারেননি অভিনেত্রী তাসনুভা তিশা। এতদিন এক ধরনের চুপচাপই ছিলেন। তবে সম্প্রতি মুক্তি পাওয়া শিহাব শাহীন পরিচালিত ওয়েব সিরিজ 'আগস্ট ১৪'তে নিজেকে চিনিয়েছেন এই অভিনেত্রী। নতুন ওটিটি প্লাটফর্ম বিঞ্জে মুক্তি পেয়েছে এই সিরিজ। মু্ক্তির পরপরই পাইরেটেড হয়ে এসেছে ইউটিউবেও। তবে যেখানেই মুক্তি পাক, আলোচনায় এসেছেন অভিনেত্রী তাসনুভা তিশা।

সিরিজটি নির্মিত হয়েছে ২০১৩ সালে এক তরুণীর হাতে তার পুলিশ কর্মকর্তা বাবা ও মায়ের হত্যাকাণ্ডের মর্মান্তিক ঘটনাকে কেন্দ্র করে। সত্য ঘটনা অবলম্বনে নির্মিত এই সিরিজে ওই তরুণীর চরিত্রে অভিনয় করেছেন তাসনুভা তিশা। বাস্তবের ঐশী চরিত্রটির নাম এখানে তুশি।

অভিনয় নিয়ে একদিকে তাসনুভাকে অনেকেই প্রশংসার জোয়ারে ভাসাচ্ছেন, আবার অশ্লীল দৃশ্যে অভিনয়ের অভিযোগও উঠেছে তার বিরুদ্ধে।

এসব নিয়েই তিনি কথা বলেন ঐশী চরিত্রে অভিনয় প্রসঙ্গে। বলেন, "চরিত্রটা আমার জন্য খুবই চ্যালেঞ্জিং ছিল। আমাকে যখন শিহাব শাহীন ভাই প্রথমবার ফোন করে বলেন এই চরিত্রের কথা। তারপরই ভেবেছি, কেন আমি। তারপর যেদিন প্রথম কথা বলতে যাই, সেদিনই তাকে জিজ্ঞেস করি, 'এই চরিত্রে আমি কেন?' শাহীন ভাই বলেন, শুরুতে নাকি অভিনেত্রী প্রসুন আজাদকে চিন্তা করেছিলেন। কিন্তু এই সময়ে তিনি চরিত্রটির জন্য শারীরিকভাবে আনফিট বলে জানিয়েছিলেন। এ কারণে দ্বিতীয় অপশন হিসেবে আমাকেই বেছে নিয়েছেন পরিচালক। তার বিশ্বাস, চরিত্রটার সঙ্গে একদম পারফেক্ট আমি।"

তাসনুভা আরও বলেন, 'তাছাড়া শিহাব ভাইয়ের স্ত্রী, অভিনেত্রী জাকিয়া বারী মম আপুও আমার কথা বলেছেন। আমার চেহারা, উচ্চতা, গেটআপ- সবকিছুই নাকি ঐশী চরিত্রের সঙ্গে মানানসই। এ কারণে হয়ে গেল।'

কী করে এমন টিনএজ চরিত্রে ঢুকে গেলেন তাসনুভা তিশা? জানালেন, সবকিছু লক হয়ে যাওয়ার পর চিত্রনাট্য পড়েছেন। ওই সময়ের পত্রিকার খবর পড়েছেন, টেলিভিশন নিউজ দেখেছেন। ওই মামলার চার্জশিট, আদালতের রায়- সবই পড়েছেন তাসনুভা। সঙ্গে পরিচালকের গাইডলাইন তো ছিলই। সব মিলিয়ে তিনি হয়ে উঠেছেন পর্দার ঐশী।

তাসনুভা বলেন, 'শুটিংয়ের টানা ১৫ দিন আমি ওই চরিত্রের মধ্যে ডুবে ছিলাম। এক মুহূর্তের জন্য বের হইনি। বাসায় এসেও মনে হয়েছে, আমি ওই চরিত্রের মধ্যেই রয়েছি। অভিনয়ের সময় ভেবেছিলাম, এটা সাড়া ফেলবে। তবে এতটা সাড়া ফেলবে, সবাই এত পছন্দ করবে- ভাবিনি।'

এই চরিত্রের অভিনয় করার কারণেই এখন বদলে গেছে তাসনুভা তিশার চারপাশ। তার কাছে এখন কাজের প্রচুর প্রস্তাব। ব্যাপারটা দারুণ উপভোগ করছেন তিনি।

তাসনুভা বলেন, 'একটা ওয়েব সিরিজ আমার চারপাশ পুরো বদলে দিয়েছে। আগে প্রথমসারির দুই-তিনজনকে না পেলে পরিচালকেরা আমাকে নক করতেন তাদের নাটকে অভিনয়ের জন্য। জানতে চাইতেন, আমার ডেট আছে কি না। এখন সেই পরিচালকেরা আগে আমার ডেট লক করছেন, পরে অন্যান্য অভিনয়শিল্পীর। একটা সময় আমি অ্যাভারেজ অভিনেত্রী ছিলাম পরিচালকদের কাছে। কিন্তু এখন যেন আমিই কাঙ্ক্ষিত অভিনেত্রী।'

অবশ্য খানিকটা অভিমানের সুরে তাসনুভা তিশা বলেন, 'গত কয়েকবছর ধরে অপেক্ষা করতাম, ইন্ড্রাস্ট্রিতে যে বড় বড় কাজ হয়, সেগুলোতে ডাক পাব। বিশেষ করে ক্লোজআপ কাছে আসার গল্প নির্মাণের সময় অপেক্ষাটা বেশি হতো। ওই সময় ইচ্ছা করেই ডেট ফাঁকা রাখতাম। যেন এইসব প্রজেক্টের জন্য ডাকলেই হ্যাঁ বলতে পারি। কিন্তু কখনোই এমনটা হয়নি। আমি কখনই সেইসব পরিচালক বা বিগ প্রজেক্টের তালিকায় ছিলাম না।'

তাসনুভা তিশা জানান, 'আগস্ট ১৪' তাকে বদলে দিয়েছে। তার চারপাশে এখন অনেকেই ভালো গল্প নিয়ে অপেক্ষা করছেন, আর এটি তার জন্য আনন্দের।

তবে নেতিবাচক কথা উঠেছে? এসব নিয়ে তিনি বলেন, 'আমি শুধু ঐশীর চরিত্রটা প্লে করেছি পরিচালকের কথা অনুযায়ী। আমার মনে হয়েছে, যা প্রয়োজনীয় পরিচালক সেটাই দেখিয়েছেন। আর শুরুতেই বলা হয়েছে এটি ১৮+ কনটেন্ট। সেটা মাথায় নিয়েই দেখতে হবে।'

সামনের কাজ সম্পর্কে তিনি জানান, এখন শুটিংয়ের অনুমতি থাকলেও খুব সীমিত আকারে হচ্ছে। তিনিও কয়েকটা কাজ করেছেন। তবে সবার আগে পছন্দ হওয়া চাই গল্প। একটা ওয়েব সিরিজ যার সবকিছু বদলে দিল, তার তো এখন সেরা গল্পের অপেক্ষাই করতেই হবে। এমনটাই মনে করেন তাসনুভা তিশা।

Add