ঢাকা    বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০

coronavirus
আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বিশ্বব্যাপী ৩১৭৭১৪১১ ২৩৩৮৬৭১৪ ৯৭৫৩১০
বাংলাদেশ ৩৫২১৭৮ ২৬০৩৯০ ৫০০৭

করোনাভাইরাসে প্রভাব ফেলছে বাংলাদেশের বাণিজ্যে

প্রকাশিত: ১১:২৯, ১০ মার্চ ২০২০  

ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

বাংলাদেশ থেকে পণ্য রফতানি হয় এমন দেশগুলোতেও করোনা ভাইরাস ছড়িয়ে পড়তে থাকায় রফতানিতে ও বাংলাদেশে এর প্রভাব পড়তে পারে বলে আশংকা তৈরি হয়েছে।

করোনার কারণে ঠিক কতটা সংকটে পড়তে পারে এদেশের বাণিজ্য?
ঢাকায় উত্তরার কাছে নলভোগ এলাকা। দেশের বিভিন্ন স্থান থেকে রফতানির আগে প্যাকিংয়ের জন্য কাঁকড়া এবং কুঁচে মাছ আনা হয় ঢাকায় উত্তরার কাছে নলভোগ এলাকা।

এয়ারপোর্টের কাছেই এই এলাকায় প্রায় ৬০টির মতো কাঁকড়া ও কুঁচে প্যাকিং সেন্টার গড়ে উঠেছে। পুরো এলাকা ঘুরে অবশ্য মাত্র ১০/১২টি সেন্টার চালু দেখা গেলো। বাকী সব বন্ধ। যেগুলো চালু আছে সেগুলোতেও কাঁকড়া নেই বললেই চলে।

কাঁকড়া ও কুঁচে রফতানিকারকদের এসোসিয়েশনের চেয়ারম্যান গাজী আবুল কাশেম জানাচ্ছেন, জানুয়ারীর ২০ তারিখ থেকেই এই অবস্থা।
কারণ কাঁকড়া ও কুঁচের ৯০ শতাংশই রফতানী হয় চীনে। চীনের ক্রেতারা কেনা বন্ধ করাতে এখন তাদের রফতানি বন্ধ।

তিনি বলছিলেন, "বছরে আমাদের রফতানির বেশিরভাগটাই হয় জানুয়ারী-ফেব্রুয়ারি মাসে। চীনা নববর্ষের কারণে এর চাহিদা বেশি থাকে। আমাদের ব্যবসায়ীরা প্রায় ৪শ কোটি টাকার কাঁকড়া ও কুঁচে রেডি করে রাখছিলো। সব নষ্ট হয়ে গেছে।"
কাঁচামাল আমদানী কমেছে।

বাংলাদেশের মোট রফতানি আয়ের বিবেচনায় কাঁকড়া ও কুঁচে খাত হয়তো বড় কিছু নয়। কিন্তু এটা স্পষ্ট যে, করোনা ভাইরাসের কারণে বাংলাদেশের ব্যবসায়ীরা ক্ষতিগ্রস্ত হতে শুরু করেছেন। কারণ চীন থেকেই বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ রফতানি পণ্যগুলোর কাঁচামাল আমদানি করা হয়।

Add