ঢাকা    বৃহস্পতিবার, ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০

coronavirus
আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বিশ্বব্যাপী ৩১৭৭১৪১১ ২৩৩৮৬৭১৪ ৯৭৫৩১০
বাংলাদেশ ৩৫২১৭৮ ২৬০৩৯০ ৫০০৭

দুই হাত উজাড় করে দিলেন ‘শাহরুখ খান’

প্রকাশিত: ২১:০৩, ৩ এপ্রিল ২০২০  

ছবি : সংগৃহীত

ছবি : সংগৃহীত

করোনাভাইরাস মোকাবেলায় এগিয়ে আসছেন সর্বস্তরের মানুষ। বলিউডের অনেক তারকা আর্থিক সহযোগিতা করছেন। কিন্তু এই সময় শাহরুখ খানের পক্ষ থেকে কোনো ঘোষণা না আসায় অনেকেই সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে সমালোচনার ঝড় তোলেন।

কিন্তু বরাবরের মতো এবারো নিন্দুকের মুখে ছাই দিলেন শাহরুখ। করোনাভাইরাসের সঙ্গে লড়াইয়ে দুহাত উজাড় করে দিলেন ‘বলিউডের বাদশা’খ্যাত এই তারকা।

প্রযোজনা প্রতিষ্ঠান রেড চিলিস, ক্রিকেট টিম কলকাতা নাইট রাইডার্স ও তার দাতব্য সংস্থা মীর ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে করোনা মোকাবেলায় বেশ কয়েকটি পদক্ষেপ গ্রহণ করেছেন কিং খান। এর মধ্যে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির পিএম কেয়ারস, মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী ও পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে মোটা অঙ্কের আর্থিক সহযোগিতা করছেন তিনি। পাশাপাশি ‘মীর ফাউন্ডেশন’ পক্ষ থেকে পশ্চিমবঙ্গ ও মহারাষ্ট্রের হাসপাতালগুলোতে ৫০ হাজার পিপিই (পার্সোনাল প্রটেকটিভ ইকুইপমেন্ট) দিচ্ছেন। এছাড়া ভবিষ্যতে পশ্চিমবঙ্গ ও মহারাষ্ট্রের হাসপাতালগুলোতে যেন ভেন্টিলেটরের অভাব না হয় এজন্য আর্থিক অনুদানের ব্যবস্থা করেছেন।

এখানেই শেষ নয়, ‘এক সাথ’ নামের একটি সংস্থার সঙ্গে মীর ফাউন্ডেশন করোনার কারণে বেকার হয়ে পড়া মুম্বাইয়ের প্রায় সাড়ে ৫ হাজার দিন মজুর পরিবারকে প্রতিদিন দুই বেলা খাওয়ানোর দায়িত্ব নিয়েছে। একমাস তাদের এই খাবার সরবরাহ করা হবে। এছাড়া প্রতিদিন ২ হাজার প্লেট খাবার পৌঁছে যাবে হাসপাতাল আর জরুরি পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত মানুষদের কাছে, আর শাহরুখ এই সমস্ত ব্যয় বহন করবেন।

শুধু তাই নয়, পুলিশের সঙ্গে যৌথভাবে তার সংস্থা প্রতিদিন ৩ লাখ প্যাকেট খাবার ছন্নছাড়া মানুষের মাঝে বিতরণ করবে। পাশাপাশি দিল্লির ২ হাজার ৫০০ দিন মজুর পরিবারের মাঝে অন্তত আগামী এক মাস বিনামূল্যে রেশন বিতরণ করা হবে। এছাড়া উত্তর প্রদেশ, দিল্লি, বিহার, পশ্চিম বাংলা, উত্তরখন্ডের ১০০ এসিড সন্ত্রাসের শিকার নারীকে বৃত্তি প্রদান করবে মীর ফাউন্ডেশন।

এ প্রসঙ্গে এক টুইটে শাহরুখ লিখেছেন, ‘এই সময়ে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ হলো আপনার চারপাশে যারা নিরলস কাজ করছেন, হতে পারে আপনার পরিচিত অথবা অপরিচিত, তারা যেন নিজেদের একা মনে না করে। চলুন পরস্পরের দেখভালের জন্য আমরা কিছু করি। ইন্ডিয়া এবং ইন্ডিয়ানরা সবাই একটি পরিবার।’

Add