ঢাকা    বৃহস্পতিবার, ১৩ আগস্ট ২০২০

coronavirus
আক্রান্ত সুস্থ মৃত
বিশ্বব্যাপী ২০৮২৭৬৩৭ ১৩৭২৩৪৭৮ ৭৪৭৫৮৪
বাংলাদেশ ২৬৯১১৫ ১৫৪৮৭১ ৩৫৫৭

২৯ ফেব্রুয়ারি সৃজিতের রিসেপশন

প্রকাশিত: ১৭:৫১, ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০   আপডেট: ০০:০৭, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

অবশেষে বিবাহত্তোর সংবর্ধনার আয়োজন করেছেন সৃজিত। এই নির্মাতার ভাষায়: ‘… পৃথিবীর সব উৎসবের ইতিহাসই বন্ধুবান্ধবদের খাওয়ানোর ইতিহাস। তাই নতুন আলুর খোসা আর ভালোবাসা দিয়ে ভাত-ডাল মাখার আগে চাই একটা জমজমাট হুল্লোড় আর ভুরিভোজ। ইংলিশ মিডিয়ামে যাকে বলে, ‘রিসেপশন’।’ খাঁটি বাঙালি শব্দ- বৌভাত।

 আসছে ২৯ ফেব্রুয়ারি সন্ধ‌্যায় সৃজিতের রাজকুটিরে এই দম্পতির রিসেপশনের আয়োজন করা হয়েছে। নিমন্ত্রণপত্রও ছাপা হয়ে গেছে। সেখানে দেখা যাচ্ছে বাম পাশে আবেঘন নর-নারীর একটি লাইন ড্রইং। ডানে ছোট ছোট কালো হরফে লেখা সেই পত্র। যার শিরোনাম- বসন্ত এসে গেছে।  

নিমন্ত্রণপত্রের প্রতিটি বাক‌্যে রয়েছে সৃজনী স্পর্শ। সরস বক্তব‌্য পত্রটিকে আরো প্রাণময় করে তুলেছে। সৃজিত শুরুটা করেছেন এভাবে: ‘আমাকে আমার মতো থাকতে দাও’ বলার দিন এবার শেষ। নৌকার পালে চোখ রেখে দিন কাটানোর আশায় বিয়েটা করেই নিলাম। তাই আপাতত মিথিলা আর সৃজিত এক রাস্তায় ট্রামলাইন, এক কবিতায় কাপলেট।’

সবশেষে নিমন্ত্রিতদের আরেকবার স্মরণ করিয়ে দেয়া: ‘আমাদের খুনসুটি আর ঝগড়াঝাঁটির জীবন আড্ডা দিয়ে জমজমাটি করে তুলতে আসবেন কিন্তু। নমস্কারান্তে- সৃজিত কমিশন।’

বালাইষাট! ঝগড়াঝাঁটির জীবন হবে কেন? বসন্ত যখন এসেই গেছে তখন ফুল ফুটুকু সৃজিত-মিথিলার ভালোবাসার শাখায় শাখায়।

উল্লেখ‌্য, সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে শুধু কলকাতার সৃজিতের বন্ধুরা নিমন্ত্রিত থাকবেন। বাংলাদেশ থেকে কাউকে নিমন্ত্রণ করা হবে না বলে মিথিলা গণমাধ‌্যমে জানিয়েছেন।

Add